ইসলাম মেনে চলা কি খুব ঝামেলার?

প্রবন্ধটি পড়া হলে, শেয়ার করতে ভুলবেন না
রহমান রহীম আল্লাহ্‌ তায়ালার নামে-

লিখেছেন: ডঃ আবুল কালাম আজাদ


আমি ইসলাম নিয়ে ব্যক্তিগত ও প্রাতিষ্ঠানিকভাবে পড়াশুনা করেছি এবং এখনো করি। এসব কিছু পড়ে এবং পালন করে বুঝেছি যে, ইসলাম একটি ঝামেলাহীন বা ঝামেলামুক্ত জীবন-পথ।
আল্লাহ পাক নিজেই ঘোষনা করেছেনঃ
وَمَا جَعَلَ عَلَيْكُمْ فِي الدِّينِ مِنْ حَرَجٍ
এবং তিনি দ্বীনের ব্যাপারে তোমাদের ওপর কোন সংকীর্নতা ঝামেলা বানাননি (সূরা আল-হাজ্জঃ ৭৮)

সূরা মায়েদার ৬ নং আয়াতে আল্লাহ অজুর বিবরণ দেওয়ার শেষের দিকে বলেছেনঃ
مَا يُرِيدُ اللَّـهُ لِيَجْعَلَ عَلَيْكُم مِّنْ حَرَجٍ
মানে হলো- আল্লাহ তোমাদের ওপর ঝামেলা চাপাতে চান না।

আসলেই তাই।
দ্বীনের সকল ক্ষেত্রেই আল্লাহ পাক এই ঝামেলামুক্ত জীবনের পদ্ধতি বলে দিয়েছেন। এর অনেক উদাহরণ দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু এখানে সংক্ষেপে মাত্র দুটো উদাহরণ উল্লেখ করব।

ইমান হলো ইসলামের আসল ভিত্তি। এই ইমানের ব্যাপারেও আল্লাহ পাক এত ঝামেলামুক্ত করেছেন বা ছাড় দিয়েছেন যে যদি কেউ জীবনের ভয়ে, কোন প্রকার চাপে বা অবস্থার কারণে মুখে বলে আমি মুসলমান না, আল্লাহ তাকে শাস্তি দিবেন না (সূরা আন-নাহলঃ ১০৬)

সালাত আদায় করা ফরজ। কিন্তু এর মধ্যেও অনেক রকমের ছাড় আল্লাহ পাক দিয়েছেন। বসে সালাত আদায় করা, শুয়ে বা দাঁড়িয়ে, ইশারা দিয়ে আদায় করা, ভ্রমন অবস্থায় সংক্ষিপ্ত করে পড়ার সুযোগ দিয়েছেন।

আল্লাহ জানেন, আমরা মানুষ। আমাদের দূর্বলতা আছে, আছে অনেক সীমাবদ্ধতা। এই বাস্তবতাকে সামনে রেখে আমাদের ইসলামের মৌলিক বিষয়গুলোতেও প্রচুর ফ্লেক্সিবিলিটি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমাদের কলুষ ও অগভীর জ্ঞানের কারণে আমরা আমাদের ইসলামী জীবনকে অনেক কঠিন ও ভারবাহী করে ফেলি। আমাদের জ্ঞান অনেক সময় হয়ে যায় খন্ডিত ও একপক্ষীয়। তাই, আমাদেরকে হয়ত অনেক সময় ঝামেলা পোহাতে হয়।

আসলে, জ্ঞানের সীমানা যদি বাড়ানো যায়, তাহলে চোখের দিগন্তও হয় সুবিস্তারিত। এর ফলে ইসলামী জগতে বিচরণ হয় অনেক সহজ, সুন্দর ও সচ্ছন্দ।

ইসলাম মেনে চলা আসলেই তেমন ঝামেলার নয়, যদি আমাদের ভালো জ্ঞান থাকে। ইসলাম অবশ্যই জীবনে ঝামেলা সৃষ্টি করে না, বরং ঝামেলা কমায়।

Post Your Comment

Thanks for your comment